ঢাকা, ||

নাজিরপুরে ছোট্ট হত্যা মামলার স্বাক্ষী ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার চেষ্টা


না‌জিরপুর

প্রকাশিত: ৬:২৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০১৯

পিরোজপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের নাজিরপুরের আলোচিত শামসুল হক ছোট্ট হত্যা মামলার স্বাক্ষী ছাত্রলীগ নেতা মো. আলী ইমরানকে (২৪) হত্যার উদ্দেশ্যে মারধর করেছে আসামীরা। আহত ওই ছাত্রলীগ নেতাকে নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভতি করা হয়েছে। সে উপজেলা ছাত্রলীগের সমাজ সেবা বিয়ষক সম্পাদক ও উপজেলার শেখমাটিয়া ইউনিয়নের চর রঘুনাথপুর গ্রামের ভাঙ্গা কবর এলাকার মাহাবুবুর রহমানের পুত্র।
আহত ওই ছাত্রলীগ নেতা জানান, তিনি শুক্রবার বিকালে উপজেলার খেজুরতলা বাজার থেকে মোটর সাইকেলে করে নাজিরপুরে আসতেছিলেন। এ সময় ওই বাজারের কবির ডাক্তারের দোকানের পূর্বপাশে থাকা আলোচিত ছাত্রদল নেতা শামসুল হক ছোট্ট হত্যা মামলার প্রধান আসামী (১নং) মোয়াজ্জেম শিকদার, মতিন মৃধা, আরিফ শিকদার, বাবুল শিকদার শহিদুল মৃধা ও মোয়াজ্জোম শিকদারের পুত্র টিটু শিকদার তাকে মোটর সাইকেল থেকে নামিয়ে বেধম ভাবে পিটিয়ে আহত করে। এসময় মোয়াজ্জেম শিকদার তার সাথে থাকা গামচা দিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার উদ্দেশ্যে গলায় ফাঁস দেয়। এ সময় আমার সাথে থাকা মোটর সাইকেল আরোহী টিটু শিকদার ও আবির হাওলাদার তাদের বাধা দিলে হামলাকারীরা তাদেরও মারধর করে। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
উল্লেখ্য, গত ২০১৬ সালের ৮মার্চ রাতে উপজেলার শেখমাটিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উপজেলার রঘুনাথপুর হক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সংযোগ সড়কে বসে স্থানীয় কতিপয় সন্ত্রাসীরা উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. শামসুল হক ছোট্টকে নির্মমভাবে কুপিয়ে আহত করে ফেলে রেখে যায়। ওই রাতে আহত শামসুল হক ছোট্টকে ছাত্রলীগ নেতা আল ইমরান সহ স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পড়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই রাতে তার মৃত্যু হয়। আহত ছাত্রলীগ নেতা ইমরান হোসেন জানান, আমি ওই মামলা দায়েরের সময় অভিযোগকারীর স্বাক্ষী হিসাবে না থাকলেও পরে মামলাটি তদšে সিআইডিতে গেলে তারা (সিআউডি) আমাকে ১২ নং স্বাক্ষী হিসাবে অর্ন্তভুক্ত করেন। এ মামলার স্বাক্ষী থাকার কারণে হামলা কারীরা আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারধর করে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মোয়াজ্জেম শিকদারের সাথে মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি জানান, উপজেলা নির্বাচনে সময় সে (ইমরান) নৌকার বিপক্ষে কাজ করে আমার সাথে খারাপ আচরন করায় তাকে সামান্য মারধর করা হয়েছে।

Top