ঢাকা, ||

নিহতের ১০ মাস পর যুবকের লাশ উত্তোলন


পি‌রোজপুর সদর

প্রকাশিত: ৫:১৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৯

পিরোজপুর সংবাদদাতা:

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে নিহতের ১০ মাস পর আদালতের নির্দেশে ডিএনএ পরীক্ষার জন্যযুবকের লাশ উত্তোলন করেছে পুলিশ।মামলার বাদী ও নিহতের মা জানান,২০১৮ সালের ৭ এপ্রিল উপজেলার পাড়েরহাট ইউনিয়নের নলবুনিয়া গ্রামের মফিজুর রহমানের ছেলে সাইফুল ইসলাম (১৯) তার বোনের সাথে আশুলিয়ার বাসা থেকে কর্মস্থলে যাওয়ার পথে ঢাকা সিরিপুর এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে নলবুনিয়া গ্রামের উজ্জল, রনি তালুকদার, আসাদ আকন, আবু সায়ীদ পান্না সহ ১০ জন লোক রড দিয়ে পিটিয়ে ও রাস্তার উপর আছড়িয়ে নির্মাম ভাবে হত্যা করে গাড়ির নিচে ফেলে সড়ক দুর্ঘটনা বলে চালিয়ে দেয়। ময়না তদন্ত ছাড়াই ওইদিন রাতেই তার নিজ গ্রাম নলবুনিয়ায় তাকে দাফন করা হয়। এঘটনায় নিহতের মা ফিরোজা বেগম বাদী হয়ে গত ৩১ মে ২০১৮ সালে ঢাকা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে ১০ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়েগত ২৫ নভেম্বর ২০১৮ সালে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য লাশটি উত্তোলন করার জন্য নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেককে নির্দেশ দেয়। আলতের নির্দেশে সোমবার পিরোজপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফকরুল ইসলাম ও ইন্দুরকানী থানা পুলিশের উপস্থিতিতে সোমবার বিকাল ৩ টায় লাশটি উত্তোলন করে ডিএনএ টেষ্টের জন্য পাঠানো হয়।
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইন্দুরকানী থানার ইন্দুরকানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা. এস এ খান, ইন্দুরকানী থানার এসআই মো. মাইনুল ইসলাম,আশুলিয়া থানার এসআই এমদাদ হোসেন সহ নিহতের আত্মীয়-স্বজন ও এলাকাবাসী।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফকরুল ইসলাম জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় গত ২০১৮ সালের ৭ এপ্্িরল সাইফুল ইসলাম নিহত হয়। পরে তার পরিবার আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করলে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য আদালতের নির্দেশেলাশটি উত্তোলন করা হয়েছে।

Top