ঢাকা, ||

আজ শহীদ নূর হোসেন দিবস


জাতীয়

প্রকাশিত: ৮:০৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০১৮

অনলাইন ডেক্সঃ

আজ ১০ নভেম্বর, ‘শহীদ নূর হোসেন দিবস’। ১৯৮৭ সালের এইদিনে তৎকালীন স্বৈরশাসকের বিরুদ্ধে রাজধানী ঢাকার রাজপথে লড়াই করতে গিয়ে শহীদ হন নূর হোসেন। বুকে পিঠে ‘গণতন্ত্র মুক্তি পাক, স্বৈরাচার নিপাত যাক’ শ্লোগান ধারণ করে শহীদ নূর হোসেনের মহান আত্মত্যাগের এই দিবসটি বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের ইতিহাসে একটি বিরল ঘটনা।

শহীদ নূর হোসেনের রক্তদানের মধ্যদিয়ে তৎকালীন স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন আরো বেগবান হয় এবং অব্যাহত লড়াই-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর স্বৈরশাসকের পতন ঘটে।

শহীদ নূর হোসেন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আজ সকাল ৮টায় রাজধানীর গুলিস্তানে শহীদ নূর হোসেন স্কয়ারে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন এবং তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এক বিবৃতিতে দিবসটি যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে পালনের জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

 

এদিকে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেছেন,

নূর হোসেনের আত্মত্যাগ প্রমাণ করে এ দেশের মানুষ গণতন্ত্রকামী। স্বৈরশাসকের শত প্রতিকূলতা, নির্যাতন কোনো কিছুই তাকে রুখতে পারেনি ।

তিনি বলেন, নূর হোসেনের অপূর্ণ স্বপ্ন তার স্মৃতিকে আরও জ্বলজ্বল করে তোলে। এ দেশের মানুষের রাজনৈতিক, সামাজিক সুখ-সমৃদ্ধি ও সুন্দর সাংস্কৃতিক জীবনের প্রেরণা হিসেবে তিনি চিরকাল বেঁচে থাকবেন। তাকে আমরা ভুলে যেতে পারি না। নূর হোসেনকে ভুলে যাওয়া মানে গণতন্ত্রকে অস্বীকার করা।

তিনি আরো বলেন, যখন নূর হোসেন স্কয়ারে দাঁড়াই, গর্বে ভরে ওঠে বুক। স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের প্রসঙ্গ উঠলেই তোমাকে স্মরণ করতে হবে। তোমাকে হারানোর কষ্টের পাশাপাশি এই গর্ব আমাদের ভালোভাবে বেঁচে থাকতে সাহায্য করে।

শনিবার রাজধানীর গুলিস্তানস্থ শহীদ নূর হোসেন চত্বরে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ’র পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান স্বপন কুমার সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

Top